||এম. এ হান্নান সরকার||

যারা বলে উপজাতিরা সহজসরল তাদের বলবো পাহাড়ের গহীন জঙ্গলে কিছু দিন ব্যবসায়ীক কাজে গিয়ে অবস্থান করার জন্য। তার পর বুঝা যাবে সহজসরল নাকি মানবজাতির রক্ত পিপাসু। পাহাড়ের আনাচে কানাচে হাজার হাজার উপজাতি সন্ত্রাসী অবৈধ অস্ত্র নিয়ে বিদ্যমান রয়েছে৷ এরা বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্রকে অস্বীকার করে। তারা চায় খাগড়াছড়ি, রাঙামাটি ও বান্দরবানকে বাংলাদেশের মূল ভূখন্ড হতে বিচ্ছিন্ন করে আলাদা “জুম্মাল্যান্ড” নামক রাষ্ট্র গঠন করার জন্য। এরা পাহাড়ের উপজাতি/বাঙ্গালী ব্যবসায়ী সহ সর্বসাধারণ হতে অস্ত্রের জোর দেখিয়ে বিপুল পরিমাণ চাঁদা আদায় করে থাকে৷ এ চাঁদাবাজির টাকা দিয়ে তারা অবৈধ অস্ত্র ক্রয় করে। এমনকি এ টাকার কিছু অংশ এদেশের কথিত বুদ্ধিজীবি, জ্ঞানপাপী, সুশীল ও তথাকথিত সংবাদমাধ্যমের হাতে যায়৷ তার জন্য এদেশের উল্লেখিত মহলটি সন্ত্রাসীদের পক্ষে অবস্থান নিয়ে সবসময় পাহাড়ের বাঙ্গালী এবং সেনাবাহিনী নিয়ে জঘন্য মিথ্যাচারে লিপ্ত হয়।

গতকাল হতে অনলাইনে এই ছবিটি সহ একটি লেখা ভাইরাল হয়েছে শিরোনাম !!!হায়রে মানবতা!!!

অনলাইনে অভিযোগ করা হয় ভান্তে ডঃ দীপংকরের মুখে অস্ত্র ঠেকিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে সন্তু লারমার জেএসএস সন্ত্রাসীরা। এই বিষয়ে অনলাইনে ভাইরাল হওয়া লেখা ও ছবি, ফেসবুক আইডির লিংক সমূহ সহ লেখাটি হুবাহু শেয়ার করা হলো। https://m.facebook.com/story.php?story_fbid=247976326892849&id=100050414511519

ধর্মীয় অনুষ্ঠানে অস্ত্র ঠেকিয়ে হত্যার হুমকি!

বান্দরবানের কালাঘাটায় আজ সকালে ড: এফ.দীপংকর মহাথের (ধুতাঙ্গ ভান্তে) এর আর্যগোহায় নিকটের বিহারে তারই প্রধান দায়ক প্রসন্ন কান্তি তনচংগ‍্যার পরিবারের মঙ্গল কামনায় একটি ধর্মীয় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠান কার্যক্রম চলমান অবস্থায় সন্তুর সন্ত্রাসী দলের লিডার অপু চাকমার নেতৃত্বে ছয় জন সশস্ত্র সদস‍্য অনুষ্ঠানস্থলে উপস্থিত হয়। সশস্ত্র দলটি ভান্তে ডঃ দীপংকরের মুখে অস্ত্র ঠেকিয়ে হত্যার হুমকি দেয় বলে অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে। তার কিছু ভক্ত প্রতিবাদ করতে গেলে সন্ত্রাসীদল তাদের মারধর করে। কয়েকজন মোবাইলে ভিডিও ধারন করতে গেলে তাদের মোবাইল ফোন জোর পূর্বক নিয়ে যাই। এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। বিহারে আগত সকল লোকেরা আতংকের মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠান শেষ করে।

সন্তুর সন্ত্রাসী দলের এহেন কার্যক্রমকে নিন্দনীয় বলে এলাকার গন্য মান্য ব্যক্তিবর্গ জানিয়েছেন। তারা একজন ধর্মগুরুর সাথে এহেন আচরণ ধর্ম লংঘনের সামিল বলে আখ্যা দেন।

উল্লেখ যে, এর পূর্বেও ভান্তে ডঃ দীপংকর’কে সন্তু লারমার জেএসএস সরাসরি হত্যার হুমকি। এমনকি ভান্তে ডঃ দীপংকরের নিজ বৌদ্ধ বিহারে জেএসএস আগুন লাগিয়ে জ্বালিয়ে দেয়। বিষয়টি নিয়ে ২০২০ সালের প্রথম দিকে সংবাদসম্মেলন করেন উক্ত ভান্তে।

By admin

মতামত

x