যত দোষ নন্দ ঘোষ প্রবাটি পার্বত্য চট্টগ্রামের জন্য প্রযোজ্য। এই কারণে বলছিলাম সাবধান হোন। উপজাতি ইউপিডিএফ সন্ত্রাসীরা বাঙ্গালিদের উপর হামলা করে আপনাদের উস্কে দিয়ে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গাহাঙ্গামা সৃষ্টি করবে৷ উপজাতি সন্ত্রাসীরা ইচ্ছা করে গত ৪ এপ্রিল হতে ফাঁদ পেতেছে উপজাতি-বাঙ্গালি সংঘর্ষ বাধানোর জন্য৷ এজন্য তারা বাঙ্গালিদের উপর হামলা করছে। লাইফু পাড়া ও পংবাড়ী জায়গা গুলো বাঙ্গালিদের। এখানে উদ্দেশ্য প্রণোদীতভাবে সংঘর্ষ বাধানোর জন্য হামলা করেছে ইউপিডিএফ প্রসিত সন্ত্রাসীরা। আর ৫ এপ্রিল দিনে ও রাতে সশস্ত্র মহড়া এবং হামলা তারই বহিঃপ্রকাশ। উপজাতি সন্ত্রাসীরা নিজেদের ঘরে নিজেরা আগুন দিয়ে তার দায়ভার বাঙ্গালির উপর দিবে। দয়া করে উল্লেখিত এলাকার বাঙ্গালিরা উপজাতি সন্ত্রাসীদের পাতানো ফাঁদে পা দিবেন না। উপজাতি সন্ত্রাসী কর্তৃক আক্রান্ত হয়ে রাগের মাথায় যদি কোন উপজাতিকে মারধর করেন, তখন উপজাতিরা নিজেদের ঘরে নিজেরা অগ্নিসংযোগ করে তার জন্য আপনাদের দায় দিয়ে তথাকথিত গণমাধ্যমে প্রচার করে উত্তেজনা সৃষ্টি করবে দেশ-বিদেশে৷ পার্বত্য চট্টগ্রামে একটা প্রবাদ আছে ছনের ঘর পুড়ে গেলে সরকার উপজাতিদের পাক্কা দালান বাড়ি করে দেয়। যার জন্য উপজাতীয়দের মধ্যে সন্ত্রাসী একটি অংশ সবসময় চায় উপজাতি বাঙ্গালি সাম্প্রদায়িক দাঙ্গাহাঙ্গামা সৃষ্টি করে ফায়দা লুটে নিতে। উপজাতি-বাঙ্গালি দাঙ্গাহাঙ্গামা সৃষ্টি হলে সরকার ও এনজিও সংস্থা এবং দাতাসংস্থা গুলো কোটি কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়। সে টাকা লুটপাট করে খাওয়ার জন্য ইউপিডিএফ ফাঁদ পেতেছে।

By admin

মতামত

x