বান্দরবান সদর উপজেলার চেমীডলু পাড়া থেকে জেএসএস শীর্ষ নেতা পুশেথোয়াই মারমাকে অপহরণ করে হত্যা করা হয়েছে।

সূত্রের তথ্য মতে জানা যায়, জেএসএস সন্ত্রাসীদের প্রতিপক্ষ ‘সন্ত্রাসী সংগঠন’ গতকাল ১২ ডিসেম্বর রাত ৮টায় পুশেথোয়াই মারমাকে অপহরণ করে নিয়ে হত্যা করে।

অদ্য (সোমবার) ১৩ ডিসেম্বর সকাল ৮টায় আমতলী এলাকা থেকে পুশেথোয়াই মারমার লাশ মাটিতে চাপা দেওয়া থেকে উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানা যায়। অপহরণের ১০ ঘন্টা পর লাশ পাওয়া যায়।

সূত্রে আরো জানা যায়, পুশেথোয়াই মারমা বান্দরবান জেএসএস সন্তু গ্রুপের বান্দরবান সদর শাখার সাধারণ সম্পাদক এবং পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সাবেক সভাপতি৷ বান্দরবনে বিগত বছরগুলোতে ৭/৮ টি হত্যাকাণ্ড সংগঠিত হয়। এসব হত্যাকাণ্ড তার নেতৃত্বে হয়েছে বলে স্থানীয়দের ধারণা। তার চাঁদাবাজি, অস্ত্রবাজি, ধর্ষণ ও নির্যাতন-নিপীড়ন সাধারণ মানুষ কোণঠাসা ছিল বান্দরবান। তার মৃত্যুর মধ্য দিয়ে বান্দরবানবাসী কিছুটা হলেও চাঁদাবাজি ও জুলুম নির্যাতন থেকে মুক্তি পাবে বলে জানা যায়।

জেএসএসের দাবি মগ লিবারেশন পার্টি (এমএলপি) পুশেথোয়াই মারমাকে অপহরণ পূর্বক হত্যা করে।

এদিকে তার লাশ উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করেছে বান্দরবান সদর থানার অফিসার্স ইনচার্জ।

By admin

মতামত

x