নিজেস্ব প্রতিনিধি

গতকাল (মঙ্গলবার) ১৪ ডিসেম্বর ২০২১ খ্রিস্টাব্দে আনুমানিক রাত ১০ ঘটিকায় কাউখালী উপজেলা সদর হতে ৮/১০ কিলোমিটার পূর্বে ৩নং ঘাগড়া ইউনিয়নের কুজইছড়ি নামক স্থানের লেভারপাড়া সাব-পোস্ট পরিচালক বাবলু চাকমার নেতৃত্বে ১০জনের একটি সশস্ত্র গ্রুপ ২ জন নিরীহ উপজাতিকে সেনাবাহিনীর সোর্স সন্দেহে নিজ বাড়ী হইতে অপহরণ করে নিয়ে যায়। অদ্যবর্তি পর্যন্ত তাদের কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি মর্মে জানা যায়। ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) এই অপহরণের সঙ্গে যুক্ত বলে জানা যায়।

অপহৃতরা হলেন-
কাউখালী উপজেলার ৩নং ঘাগড়া ইউনিয়নের কুজইছড়ি গ্রামের বাসিন্দা হেমন্ত চাকমার ছেলে ১. শ্যামল চাকমা (২৮) ও একই গ্রামের বিমলেন্দু চাকমার ছেলে ২. শান্তিময় চাকমা (৩৫)

অপহৃতদের পরিবার আতঙ্কে আছে, তাদের আশঙ্কা সন্ত্রাসীরা তাদের শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের মাধ্যমে হত্যা করবে। তাই তারা প্রশাসন ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন, অতিদ্রুত অপহৃতদের উদ্ধার করে পরিবারের নিকট ফেরত দেওয়ার জন্য।

সূত্রে জানা গেছে ঘাগড়া কুজইছড়ি এক সাপ্তাহ ব্যবধানে সেনাবাহিনী ২/৩ টি অভিযান পরিচালনা করে। এসব অভিযানের মধ্যে ১টি সফল অভিযান হয়। এলাকার বাসিন্দা শ্যামল চাকমা ও শান্তিময় চাকমাকে সেনাবাহিনীর সোর্স হিসেবে সন্দেহ করে আসছিল ইউপিডিএফ প্রসিত মূল। পূর্বেও ইউপিডিএফ তাদের হুমকি-ধামকি দিয়েছে বলে সূত্রের তথ্য মতে জানা যায়। এই থেকে প্রতিয়মান হয় যে, ইউপিডিএফ এই অপহরণ সাথে সরাসরি জড়িত।

একটি সূত্র জানিয়েছেন, ইউপিডিএফের কাউখালী ইউনিটের পরিচালক অতুল চাকমা ও সহযোগী পরিচালক অমেলেন্দু চাকমা সাবেক মেম্বারের নির্দেশ
উক্ত নিরীহ ব্যক্তিদের অপহরণ করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায় ইউপিডিএফ। মোটা অংকের মুক্তিপণ্য তাদের পরিবার দিতে ব্যর্থ হলে যেকোনো সময় তাদেরকে হত্যা করে লাশ গুম করতে পারেই।

দু’জন অপহরণের বিষয়ে সত্যতা জানতে কাউখালী থানায় যোগাযোগ করলে জানা যায়, অপহরণের বিষয়ে কেউ এখন পর্যন্ত অভিযোগ করেন নি।

By admin

মতামত

x