বান্দরবান জেলার রোয়াংছড়ি ও রুমা সীমান্তের ফালংক্ষ্যং নামক এলাকায় দুই উপজাতি সন্ত্রাসী সশস্ত্র গ্রুপের গোলাগুলিতে ৪ জন নিহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। গতকাল শনিবার (৫ মার্চ ২০২২ খ্রিস্টাব্দ) সন্ধ্যায় দুই শসস্ত্র গ্রুপের গোলাগুলির ঘটনায় তারা নিহত হন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বান্দরবানের পুলিশ সুপার জেরিন আখতার।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শনিবার সন্ধ্যায় দুই শসস্ত্র গ্রুপের গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। আর এই ঘটনার পর উক্ত এলাকার সাঙ্গু নদীর তীরে ৪ জনের লাশ পড়ে থাকে। সূত্র জানায় জেএসএস সন্তু গ্রুপের সঙ্গে মগ লিবারেশন পার্টি ( এমএলপি) মধ্যকার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে৷ এসময় ৪ হন এমএলপি সদস্য নিহত হয় জেএসএস সন্তুর হাতে। এদিকে এই ঘটনার খবর পেয়ে রোববার সকাল ১১ টায় সেনাবাহিনী, পুলিশ এই ৪ জনের মরদেহ উদ্ধারে ঘটনাস্থলে গেছে। এই ঘটনায় এলাকায় চরম আতংক বিরাজ করছে।

বিগত বছরে বান্দরবানে জেএসএস ও জেএসএস সংস্কার এম. এন এবং মগ লিবারেশন পার্টি (এমএলপি) মধ্যকার চাঁদাবাজির টাকা ভাগাভাগি ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ৩ সন্ত্রাসী গ্রুপে একাধিকবার সংঘর্ষ হয়েছে। এসব সংঘর্ষে বহু হতাহতের ঘটনা ঘটেছে৷ এই নিয়ে বান্দরবান অশান্ত হয়ে পড়ছে। গতকালের ঘটনাও তারই ধারাবাহিকতায় ঘটেছে বলে স্থানীয়রা মনে করে।

প্রসঙ্গত, গত শনিবার বান্দরবানের রোয়াংছড়ি উপজেলায় শসস্ত্র সন্ত্রাসীরা জেএসএস এর সাবেক এক সদস্য উনুমং মার্মা (৪৫)কে গুলি করে হত্যা করে, এখনও তার লাশের সন্ধান পাওয়া যায়নি। এসময় সন্ত্রাসীরা ২ জনকে অপহরণ করে নিয়ে যায়।


By admin

মতামত

x