জেএসএস সহ-সভাপতি ও রাঙ্গামাটি সংসদীয় আসনের সাবেক সাংসদ উষাতন তালুকদারের ছেলে অটল তালুকদার সেনাবাহিনীর শারীরিক প্রশিক্ষণ ট্রেনিং এর ছবি তুলে আটক হলেও জোর তদবিরে পরবর্তীতে তাকে পরিবারের জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হয়!

স্থানীয় উপজাতি-বাঙ্গালী সম্প্রদায় ও পাহাড়ের সচেতন মহল মনে করেন, সেনাবাহিনীর শারীরিক প্রশিক্ষণের ছবি তোলা এবং সেনাবাহিনীর সঙ্গে খারাপ আচরণ করা ব্যক্তি যদি জেএসএস সহ-সভাপতি ও সাবেক সাংসদ উষাতন তালুকদার এর ছেলে অটল তালুকদার না হয়েই অন্য কোনো সাধারণ উপজাতি বা বাঙ্গালী হতেন, তাহলে কী সেনাবাহিনী বা পুলিশ এত সহজে তাকে ছেড়ে দিত? অটল তালুকদারকে ছেড়ে দেওয়াই এমন প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে জনমতে।

উষাতন তালুকদার দীর্ঘদিন থেকে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির মৌলিক শর্ত লঙ্ঘনকারী ‘জেএসএস সন্তু গ্রুপ’ এর সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তার জেএসএস দীর্ঘদিন ধরে চাঁদাবাজি, অস্ত্রবাজি, অপহরণ, খুন-গুম ও দেশদ্রোহী মূলক কার্যকলাপে জড়িত রয়েছে৷ এমন একজন দেশদ্রোহী ও সন্ত্রাসী ব্যক্তির ছেলে সেনাবাহিনীর শারীরিক প্রশিক্ষণ ট্রেনিং এর ছবি তোলা এবং সেনাবাহিনীর সঙ্গে খারাপ আচরণ করা নিঃসন্দেহে গভীর ষড়যন্ত্রের অংশ৷ সামরিক এলাকার ও প্রশিক্ষণের ছবি তোলা কে কোনভাবেই খাটো করে দেখার সুযোগ নেই, যেহেতু অটল তালুকদার জেএসএস সন্ত্রাসী গ্রুপের উষাতন তালুকদার এর ছেলে৷ তাই মানুষের সন্দেহ যে, এটা গভীর ষড়যন্ত্রের আলামত। পার্বত্য চট্টগ্রামে জেএসএস এর ১০ হাজারের অধিক সশস্ত্র সদস্য রয়েছে৷যারা পার্বত্য চট্টগ্রামকে বাংলাদেশের মূল ভূখণ্ড হতে বিচ্ছিন্ন করে আলাদা ‘জুম্মল্যান্ড’ নামক রাষ্ট্র গঠন করার গভীর ষড়যন্ত্র করে আসছে। তাদের এই যাত্রায় বাধা পাহাড়ের সেনাবাহিনী। তাই তারা দীর্ঘদিন থেকে সেনাবাহিনীর বিরোধিতা করে আসছে, এবং দাবি করে আসছে, পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে বাঙ্গালী ও সেনা প্রত্যাহারের৷ বর্তমান সেনাবাহিনীর সামরিক এরিয়া ও প্রশিক্ষণ ট্রেনিং এর ছবি তোলাও জেএসএস এর সেনাবাহিনীর অবস্থান এবং প্রশিক্ষণ সম্পর্কে জানার কৌশল হতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে মনে হয়।

সূত্রে জানা যায়, গতকাল (সোমবার) ৯ মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দে রাঙ্গামাটি সদরের সেনাবাহিনীর জোন এলাকায় শারীরিক ট্রেনিং চলাকালীন সকাল আনুমানিক ৬:০৫ ঘটিকার সময় প্রশিক্ষণরত সেনাবাহিনীর ছবি তুলেন জেএসএস সহ-সভাপতি ও সাবেক সাংসদ উষাতন তালুকদারের ছেলে অটল তালুকদার (৪২)। এই বিষয়ে সেখানে কর্তব্যরত সেনাসদস্যরা তাকে বাধা প্রদান করিলে তাদের সাথে খারাপ আচরণ করেন অটল তালুকদার। তখন কতৃপক্ষের নির্দেশে তাকে জোনে নিয়ে যাওয়া হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞেসাবাদে তাকে রাঙ্গামাটি কোতোয়ালি থানার পুলিশের হাতে হস্তান্তর করা হয়। সেনাবাহিনীর পক্ষ হতে মামলা এ অভিযোগ না দেওয়াই পুলিশ অটল তালুকদার (৪২) কে তার চাচাতো ভাই অনুপ চাকমার জিম্মায় ছেড়ে দেয়।

উষাতন তালুকদারের ছেলে অটল তালুকদারের পক্ষে অটল তালুকদারের অভিভাবক অনুপ কুমার চাকমা (চাচাতো ভাই) ও স্ত্রী (সুশীলা চাকমা) জিম্মাদার হয়ে ভবিষ্যতে এমন দুর্ব্যবহার করা হবে না এই মর্মে  উল্লেখিত রাঙ্গামাটি কোতয়ালী থানার (তদন্ত ওসি কর্তৃক)-থানায় মুচলেকা দিয়ে গতকাল মোটরসাইকেল ও উক্ত ব্যাক্তিকে ছাড়িয়ে নিয়ে যান। অটল তালুকদার কে ছাড়িয়ে নিতে জেএসএস সন্তু গ্রুপের নেতারা পুলিশকে তদবির করেন, এবং জেএসএস শীর্ষ নেতা ও রাজনৈতিক মহলের মাধ্যমে পুলিশের সঙ্গে লিয়াজো করে অটল তালুকদারকে জেএসএস ছাড়িয়ে নিয়ে যান৷

এর আগে অটল তালুকদার বাংলাদেশ থেকে দুবাই ও কানাডায় গমন করেন, এবং ২০১৯ সালে বাংলাদেশে আগমন করেন ও রাণী দয়াময় স্কুলের সামনে পিওশন নামে একটি রেস্টুরেন্টে শেয়ারে ব্যাবসা করেন পরে শেয়ারের ব্যাবসা বাতিল করে বর্তমানে বার্গে লেক ভিউ রেস্টুরেন্টে শেফ ম্যান হিসেবে কাজ করেন বলে উক্ত ব্যক্তির স্ত্রী (সুশীলা চাকমা) হতে জানা যায়। তবে এর সত্যতা ও পর্দার অন্তরালেে কিছু জানা যায়নি।

By admin

মতামত

x