ইউপিডিএফ প্রসিত মূল সন্ত্রাসীরা সারাবছর হতদরিদ্র কৃষক থেকে জমি চাষবাস করতে চাঁদা নেয়। আবার পরিবার প্রতি বাৎসরিক গণচাঁদাও নেয়৷ তারা নাকি এখন কৃষকদের জমির ধান কেটে দিচ্ছে! রাঙ্গামাটি জেলার বাঘাইছড়িতে ভাঁওতাবাজির অংশ হিসেবে কৃষকের ধানকাটছে ইউনাইটেড পিপলস ডেমোত্রুেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) বাঘাইছড়ি ইউনিট। অদ্য বুধবার (১৮মে ২০২২ খ্রিস্টাব্দ) সকালে ইউপিডিএফ সংগঠক পরান্টু চাকমার নেতৃত্বে ধানকাটা কর্মসূচী শুরু করা হয়। পার্বত্য চট্টগ্রামের বিভিন্ন স্থানে ইউপিডিএফ লোক দেখানো ও সেলফি তোলার ধানকাটার কর্মসূচী হাতে নিয়েছে।

এদিকে এটাকে স্থানীয় জনসাধারণ বলছে, গরু মেরে জুতা দান করার সামিল। আর তাদের এই ধান কাটা হচ্ছে শুধুমাত্র সেলফি তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করেই জনসমর্থন নেওয়ার কৌশল। ইউপিডিএফ এর এই ভাঁওতাবাজি এখন পার্বত্যবাসী জেনে গেছে৷ যতই তারা লোক দেখানোর জন্য সাধারণ মানুষের কাতারে আসতে চেষ্টা করুন, মানুষ কিন্তু জেনে গেছে ইউপিডিএফ একটি বিচ্ছিন্নতাবাদী সন্ত্রাসী সংগঠন৷ যারা অধিকার আদায়ের সাইনবোর্ড বিক্রি করে পাহাড়ে চাঁদাবাজি করে, এবং হত্যা, অপহরণ ও খুন-গুম করে পার্বত্য জনজীবন অতিষ্ঠ করে তুলছে।

উল্লেখ্য যে, ইউপিডিএফ ১৯৯৭ সালের ২-রা ডিসেম্বর এর পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির বিরোধিতা করে পূর্ণস্বায়ত্তশাসন দাবি রেখে ১৯৯৮ সালের ২৬ ডিসেম্বর ঢাকায় এক সংবাদ সম্মেলনের মধ্য দিয়ে আত্মপ্রকাশ করে। সংগঠনটি যে উদ্দেশ্যে নিয়ে আত্মপ্রকাশ করেছে সে উদ্দেশ্যেই কিন্তু এখন আর নেই৷ তারা এখন অবৈধ অস্ত্র নিয়ে চাঁদাবাজি, অপহরণ খুন-গুমসহ রাষ্ট্র বিরোধী কার্যক্রমে জড়িত।

By admin

মতামত

x