স্টাফ রিপোর্টার:
পাহাড়ে প্রত্যাহারকৃত সেনাক্যাম্পে ‘আর্মড পুলিশ মাউন্টেইন ব্যাটালিয়ন’বসানোর প্রস্তাব
তিন পার্বত্য জেলায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশের একটি বিশেষায়িত ব্যাটালিয়ন গঠনের প্রস্তাব জমা পড়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে। ‘আর্মড পুলিশ মাউন্টেইন ব্যাটালিয়ন’ নামে প্রকল্প প্রস্তাবের ফাইলটি সোমবার (১৫ মার্চ) স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের হাতে হস্তান্তর করেন আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ।

সংশ্লিষ্টরা জানান, শান্তি চুক্তি অনুযায়ী তিন পার্বত্য জেলা থেকে সেনাবাহিনীর সদস্যরা অনেকগুলো ক্যাম্প ছেড়ে চলে এসেছে। ফলে সাম্প্রতিক সময়ে তিন পার্বত্য জেলায় সন্ত্রাসীদের উৎপাত বেড়ে যায়। এজন্য সেখানে নতুন করে পুলিশের বিশেষায়িত ইউনিট স্থাপনের সিদ্ধান্ত নেয় সরকার।

গত ২৮ ফেব্রুয়ারি (২০২১) পার্বত্য চট্টগ্রামের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (জেএসএস) সভাপতি জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা ওরফে সন্তু লারমার সঙ্গে বৈঠক হয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে। বৈঠকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালসহ মন্ত্রণালয় ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে তিন পার্বত্য চট্টগ্রামের সার্বিক পরিস্থিতি জানার জন্য একজন অতিরিক্ত সচিবের মাধ্যমে বিস্তারিত প্রতিবেদন আনা হয়েছে। পার্বত্য চট্টগ্রামের সকল পক্ষের সঙ্গে কথা বলে তিনি আইনশৃঙ্খলাসহ সার্বিক বিষয়ে কিছু সুপারিশ করেছেন। ‘শান্তি বাহিনী’র দীর্ঘ বিদ্রোহের অবসান ঘটাতে ১৯৯৭ সালের ২ ডিসেম্বর পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি ও সরকারের মধ্যে শান্তিচুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, এর আগেও বলেছি। শান্তিচুক্তি অনুযায়ী তিন পার্বত্য জেলা থেকে সেনাবাহিনীর সদস্যরা অনেকগুলো ক্যাম্প ছেড়ে চলে এসেছে। ফলে তিন পার্বত্য জেলায় এরইমধ্যে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটছে। সেজন্য সেখানকার আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় বিশেষায়িত পুলিশ মোতায়েনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। আমাদের দায়িত্ব হচ্ছে সেখানে শান্তি-শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা। সেজন্য খালি সেনাক্যাম্পগুলো সহ যেখানে প্রয়োজন সেখানেই বিশেষায়িত পুলিশ মোতায়েন করা হবে।

By admin

মতামত

x