||তাপস কুমার পাল||

দিঘিনালায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের গুলিতে দিপন জ্যোতি চাকমা আহত হওয়ার ঘটনায় সেনাবাহিনীকে জড়িয়ে মিথ্যাচার করছে উপজাতি সন্ত্রাসীরা।

উপজাতি সন্ত্রাসীদের দ্বারা পরিচালিত ভূইফোড় কিছু অনলাইন নিউজ পোর্টাল এবং নামপরিচয় বিহীন একাধিক ফেসবুক আইডি সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে নিয়োমিত মিথ্যাচার করেই যাচ্ছে।
তারই ধারাবাহিকতায় গতকাল (রবিবার) ২৪ অক্টোবর, দিঘিনালায় উপজাতি সন্ত্রাসীদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষকে সেনাবাহিনী ইন্ধন বলে গুজব ছড়াচ্ছে তারা।
আফসোস হচ্ছে এই আইডি গুলোর বিরুদ্ধে একাধিক আর্টিকেল লেখা হলেও সরকারের পক্ষ থেকে আইডি গুলো বন্ধে কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি!
দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে সন্ত্রাসীরা অপপ্রচার করে বারবার পার পেয়ে যাচ্ছে, তাই দেশের বিরুদ্ধেও কথা বলতে আর দ্বিধাবোধ করছে না।
সেনাবাহিনীকে নিয়ে অপপ্রচারকারীদের বিরুদ্ধে বাস্তবমুখী কোন পদক্ষেপ না নেয়ায় আমরা পার্বত্যবাসী উদ্বিগ্ন।
উপজাতি সন্ত্রাসীদের স্পর্ধা কতটুকু হলে দেশের সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে কথা বলার সাহস পায়?
উপজাতি সন্ত্রাসীদের আসল টার্গেট হলো যে কোন উপায়ে পাহাড় থেকে সেনাবাহিনীকে সরিয়ে দেয়া।
তাহলে পার্বত্য চট্টগ্রামে তাদের একক আধিপত্য কায়েম হবে।সহজেই জুম্মল্যান্ড নামক কথিত রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে পারবে।
তথ্য মন্ত্রণালয়ের কাছে দাবি জানাচ্ছি পার্বত্য চট্টগ্রামের জন্য একটি টিম গঠন করে সন্ত্রাসীদের উস্কানিদাতা যত আইডি, অনলাইন পেইজ রয়েছে তাদেরকে সনাক্ত করুন।
পার্বত্য চট্টগ্রামের তথ্য সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ গ্রহণ করতে না পারলে দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনী বিতর্কিত হবে,উপজাত-বাঙালি দাঙ্গা লেগেই থাকবে এবং দেশের স্বাধীনতা স্বার্বভৌমত্ব হুমকির মুখে পরবে।

By admin

মতামত

x