রামগড়ে পার্বত্য চুক্তি বিরোধী সন্ত্রাসী সংগঠন ইউপিডিএফ এর হামলায় তিন বাঙ্গালী জখম।

0
144

পার্বত্য খাগড়াছড়ি জেলার রামগড় উপজেলায় পার্বত্য বিচ্ছিন্নতাবাদী সন্ত্রাসী সংগঠন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) প্রসীত গ্রুপের সন্ত্রাসীদের হামলায় ২ জন অটোরিক্সা চালক ও একজন কৃষি শ্রমিক গুরুতর জখম হয়েছেন।

অদ্য রবিবার ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ খ্রিস্টাব্দে উপজেলার তিনটি সড়কে এ ঘটনার পরপরই প্রতিবাদ জানিয়েছে সিএনজি অটোরিক্সা চালক সমবায় সমিতি এবং ধর্মঘট পালন করছে।

স্থানীয়রা জানান, গত শনিবার ১১ ফেব্রুয়ারি বিকালে রামগড় উপজেলার প্রেমতলা নামক স্থানে ইউপিডিএফের প্রসীত গ্রুপের সজল ত্রিপুরা নামের এক সশস্ত্র সন্ত্রাসী মোবাইল ফোনে কল করে ডেকে নিয়ে সিএনজি চালক আবুল কালাম (৫২) ও সাইফুল ইসলাম(৩০)-কে নির্মমভাবে মারধর করে জখম করে। আহতরা দুজন সম্পর্কে জামাই-শ্বশুর এবং উপজেলার কাশিবাড়ি গ্রামের বাসিন্দা।
একই সময়ে ঐ সন্ত্রাসী কৃষি শ্রমিক সাইফুল(৩০)-কে নুরপুর এলাকা থেকে মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে প্রেমতলা এলাকায় প্রচণ্ডভাবে মারধর করে। আহত শ্রমিক নুরপুর গ্রামের মৃত শামছুল হকের ছেলে।

স্থানীয় বাঙ্গালীরা খবর পেয়ে তাদেরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন। শ্রমিকদের সারা শরীরের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। চোখমুখ ও হাত বেধে প্রচণ্ড মারধর করে সন্ত্রাসী সজল।

বল্টুরামটিলা এলাকা থেকে বাঙ্গালী যুবকদের একটি দল ঘটনারস্থলে গেলে সজল ত্রিপুরা পালিয়ে যায়৷

ঘটনার প্রতিবাদে রবিবার রামগড়-বৈদ্যপাড়, রামগড়- পিলাক ও রামগড় -যৌথখামার সড়কে সিএনজি অটোরিক্সা ধর্মঘটের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

আহতরা জানায়, তাদের বিজিবি’র সোর্স সন্দেহে ইউপিডিএফ নির্মমভাবে মারধর করে এবং অস্ত্র ঠেকিয়ে দুই লাখ টাকা দাবি করে।

একটি সূত্রে জানা যায় সজল ত্রিপুরা সাথে স্থানীয় কিছু বাঙ্গালীর সম্পৃক্ততা রয়েছে৷ তাকে মিথ্যা তথ্য দিয়ে বাঙ্গালী অটোরিক্সা চালক ও কৃষি শ্রমিকের উপর হামলা করিয়েছে।

রামগড় থানার উপপরিদর্শক এসআই মোহাম্মদ জাকারিয়া জানান, আহত ৩ জনের শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। এই ঘটনায় অভিযোগ পেলে ব‍্যাবস্থা নেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here